পৃথিবীর সবচেয়ে প্রাচীন ১০টি বিশ্ববিদ্যালয়

মানব সভ্যতার ইতিহাসে প্রাচীনকাল থেকেই জ্ঞান বিজ্ঞানের চর্চা হয়ে আসছে এবং সে লক্ষ্যেই মানব সমাজে বিদ্যালয় এবং বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের প্রয়োজনীয়তা দেখা দেয়। পৃথিবীর আনাচে কানাচে বহু প্রাচীন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং বিশ্ববিদ্যালয় ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে।

পৃথিবীর সবচেয়ে প্রাচীন ১০টি বিশ্ববিদ্যালয়কে আলচ্য করেই আমাদের আজকের এই আয়োজন। 

১. সিয়েনা বিশ্ববিদ্যালয় (১২৪০ খ্রিষ্টাব্দ)

ইতালীর সিয়েনা নামক ছোট্ট শহরে প্রায় ২০০০০ শীক্ষার্থী নিয়ে এই বিশ্ববিদ্যালয়টি গঠিত যা এই শহরের মোট জনসংখ্যার অর্ধেক। ১২৪০ সালে স্থাপিত এই বিশ্ববিদ্যালয়ে ১৩২১ সালে বোলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি বিদ্রোহের জের ধরে এই শীক্ষার্থী সংখ্যা দ্রুত প্রসার লাভ করে।   

২. ২য় নেপলস ফেদেরিকো বিশ্ববিদ্যালয় (১২২৪ খ্রিষ্টাব্দ)

১২২৪ সালে প্রতিষ্ঠিত ২য় নেপলস ফেদেরিকো বিশ্ববিদ্যালয় (The University of Naples Federico II)পৃথিবীর ৭ম প্রাচীন বিশ্ববিদ্যালয় এবং ইতালীর ৩য় প্রাচীন বিশ্ববিদ্যালয়। এই বিশ্ববিদ্যালয়টি রোমান সম্রাট ২য় ফেদেরিকোর ফান্ডে প্রতিষ্ঠিত হয়। সবচেয়ে অবাক করা বিষয় হচ্ছে এই বিশ্ববিদ্যালয়টি তখনকার একমাত্র বিশ্ববিদ্যালয় যার কোনওভাবেই চার্চের সাথে যোগসাজশ ছিলো না, যেটা তখনকার দিনে ভাবাও যেতো না     

৩. পাদুয়া বিশ্ববিদ্যালয় (১২২২ খ্রিষ্টাব্দ)

ইতালীর পাদুয়া বিশ্ববিদ্যালয় (University of Padua) তার উৎপত্তির জন্য বোলোনা বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছে অনেকাংশে ঋণী। কারন বোলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের কিছু শিক্ষক এবং ছাত্র বোলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের চেয়ে জ্ঞান, কল্পনাশক্তি এবং চিন্তার স্বাধীনতা নিশ্চিতের লক্ষ্যে নতুন এক বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রয়োজনীয়তা অনুভব করেন, যার ফলশ্রুতিতে পাদুয়া বিশ্ববিদ্যালয় জন্ম লাভ করে। প্রখ্যাত বিজ্ঞানী কোপার্নিকাস এবং গ্যালিলিও এই বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।    

৪. ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয় (১২০৯ খ্রিষ্টাব্দ)

পৃথিবীর অন্যতম শ্রেষ্ঠ এবং বিখ্যাত বিদ্যাপীঠ এই ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়। অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের কিছু জ্ঞান তাপস অক্সফোর্ড থেকে বেরিয়ে এসে ভিন্ন একটি আদর্শ শিক্ষাকেন্দ্র স্থাপনে ব্রতী হলে ১২০৯ সালে ক্যামব্রিজের জন্ম হয়। এর ৮০০ বছর পরে আজকের এই যুগে ক্যামব্রিজ পৃথিবীর অন্যতম সেরা বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকার উপরের সারিতে অবস্থানরত আছে, সেই সাথে এটির রয়েছে মুগ্ধ করার মতো চমৎকার একটি ক্যাম্পাস।   

৫. সালামানাক বিশ্ববিদ্যালয়(১১৬৪ খ্রিষ্টাব্দ)

সালামানাকা বিশ্ববিদ্যালয় (University of Salamanaca) স্পেনের প্রথম বিশ্ববিদ্যালয়। এই বিশ্ববিদ্যালয়কে ইউনিভারসিটি অফ ভ্যালাদলিদও (University of Valladolid) বলা হয়ে থাকে, স্পেনের কাস্তিলে এবং লিওনেও এর শাখা রয়েছে। এই বিশ্ববিদ্যালয়ের উৎপত্তি নিয়ে কিছুটা ধোয়াশা রয়েছে এর পাঠদান কার্যক্রম ১০৯৪ সালে হলেও লিওনের রাজা কতৃক এটি ১১৬৪ সালে আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি লাভ করে।   

৬. অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়(১০৯৬ খ্রিষ্টাব্দ)

ইংরেজীভাষী পৃথিবীর প্রথম বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে অক্সফোর্ড যদিও বেশীরভাগ পাঠদান ল্যাটিন ভাষায়ই হতো। ১০৯৬ সালে ইংল্যান্ডের লন্ডন থেকে ৫১ মাইল দক্ষিন পশ্চিমে অক্সফোর্ড শহরে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় (University of Oxford) গড়ে ওঠে। ১১৬৭ সালে রাজা ২য় হেনরী ব্রিটিশ শিক্ষার্থীদের ফ্রান্সের ইউনিভার্সিটি অফ প্যারিসে পড়তে যাওয়া নিষিদ্ধ করার পরে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় ব্যাপক প্রসার লাভ করে।   

৭. বোলনা বিশ্ববিদ্যালয় (১০৮৮ খ্রিষ্টাব্দ)

ইতালীর বোলনাতে অবস্থিত ১০৮৮ খ্রিষ্টাব্দে স্থাপিত এই বিশ্ববিদ্যালয়টি ইউরোপের সবচেয়ে প্রাচীন এবং অন্যতম শ্রেষ্ঠ বিদ্যাপীঠ। প্রতিষ্ঠার প্রাথমিক যুগেই এটি আইনশাস্ত্রের জন্য ব্যাপক সুখ্যাতি লাভ করে। এবং দূর দুরান্ত থেকে শিক্ষার্থীরা আইন বিষয়ে পড়াশোনা করতে আসতো এখানে। বিখ্যাত মহাকবি দান্তে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রফেসর হিসেবে শিক্ষাদান করেছেন।

৮. আল-আজহার বিশ্ববিদ্যালয় (৯৭০ খ্রিষ্টাব্দ)

আল আজহার বিশ্ববিদ্যালয় (Al- Azhar University) মিশরের কায়রোতে ৯৭০ খ্রিষ্টাব্দে প্রতিষ্ঠিত হয়। এটি শুরুতে একটি মাদ্রাসা হিসেবে কার্যক্রম শুরু করে যেখানে প্রাথমিক থেকে টারশিয়ারি লেভেল পর্যন্ত ইসলামি বিভিন্ন বিষয়ে পাঠদান করা হতো। মজার ব্যাপার হচ্ছে এতো প্রাচীন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হওয়া সত্ত্বেও এটি ১৯৬১ সালে বিশ্ববিদ্যালয়ের মর্যাদা লাভ করে এবং ইসলামি বিভিন্ন বিষয়ে পাঠদানের পাশাপাশি অন্যান্য বিভিন্ন বিষয়েও পাঠোদান করা শুরু করে।    

৯.  আল-কারাউইন বিশ্ববিদ্যালয় (৮৫৯ খ্রিষ্টাব্দ)

গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড এই প্রতিষ্ঠানটিকে “oldest existing, and continually operating educational institution in the worldনামে অভিহিত করেছে। The University of Al-Karaouine  অথবাAl-Quaraouiyine University নামেও যা পরিচিত ৮৫৯ খ্রিষ্টাব্দে ফাতিমা আল ফিহরির হাত ধরে মরক্কোর ফেসে একটি কমিউনিটি মসজিদ এবং বৃহৎ মাদ্রাসা হিসেবে গড়ে ওঠে। বিশ্ববিদ্যালয়টি এখনও সক্ষমতার সাথে পরিচালিত হয়ে আসছে এবং ইসলামিক স্টাডিস, নীতিশাস্ত্র, আইন বিজ্ঞান (legal sciences), তুলনামূলক বিচারশাস্ত্র (comparative jurisprudence),   

১০. নালন্দা (৫ম শতক)

নালন্দা  এই লিস্টের একমাত্র বিশ্ববিদ্যালয় যেটির কার্যক্রম এখন আর নেই শুধুই ধ্বংসাবশেষ রয়ে গেছে কালের সাক্ষী হিসেবে। নালন্দা প্রাচীন ভারতের মগধ রাজ্যে (অধুনা ভারতের বিহার রাজ্য) অবস্থিত একটি খ্যাতনামা বৌদ্ধ মহাবিহার। এটি বিহারের রাজধানী পাটনা শহরের ৯৫ কিলোমিটার দক্ষিণপূর্বে এবং বিহার শরিফ শহরের কাছে অবস্থিত। খ্রিস্টীয় ৭ম শতাব্দী থেকে আনুমানিক ১২০০ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত নালন্দা মহাবিহার ছিল ভারতের একটি গুরুত্বপূর্ণ উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠান। বর্তমানে এটি একটি ইউনেস্কো বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থান।

নালন্দা মহাবিহারের বিকাশ ঘটেছিল খ্রিস্টীয় ৫ম-৬ষ্ঠ শতাব্দীতে গুপ্ত সম্রাটগনের এবং পরবর্তীকালে কনৌজের সম্রাট হর্ষবর্ধনের পৃষ্ঠপোষকতায়। গুপ্ত যুগের উদার সাংস্কৃতিক পরিমণ্ডলের ফলশ্রুতিতে খ্রিস্টীয় ৯ম শতাব্দী পর্যন্ত ভারতে এক বিকাশ ও সমৃদ্ধির যুগ চলেছিল। পরবর্তী শতাব্দীগুলিতে অবশ্য সেই পরিস্থিতির অবনতি ঘটে।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close