কোরবানির ঈদ ও দাঁতের যত্ন

লেখাঃ ডাঃ মোঃ মাহফুজুর রহমান
সবাইকে পবিত্র ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা, ঈদ মোবারক। কোরবানির ঈদ ত্যাগের মহিমায় মহিমান্বিত। এই ঈদে মহান আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনের জন্য আমরা পশু কোরবানি করে থাকি। এই কোরবানির পশুর মাংস আমরা দরিদ্র লোকজন এবং আত্মীয় স্বজন্দের মাঝে বিতরন করে থাকি এবং একই সাথে নিজেরাও কোরবানির পশুর মাংসের স্বাদ গ্রহণ করি। এভাবেই সবার মাঝে ছড়িয়ে পড়ে ঈদের আনন্দ। কিন্তু এই আনন্দ বিলীন হয়ে যেতে পারে দাত ও মুখ গহবরের নানাবিধ সমস্যায়। কোরবানির ইদের সময় মানুষ মুখ ও দাতের যে সমস্ত অসুবিধা বেশী বোধ করে তার মধ্যে অন্যতম হলো খাবার পরে দুই দাতের মাঝে মাংস আটকে যাওয়া। অনেক সময় এই আটকে যাওয়া মাংস থেকে মাড়ি ফুলে যেতে পারে মাড়িতে ব্যাথাও হতে পারে। মাংসের হাড় খেতে আমরা অনেকেই পছন্দ করি। অনেক সময় এই হাড় খেতে গিয়ে দাতের কোনও অংশ ভেঙে যেতে পারে অথবা দাতের মাঝে চিড় ধরতে পারে। পরবর্তীতে সেখান থেকে ব্যাথা বা শিরশির অনুভুতি হতে পারে।
আসুন জেনে নেই উপরোক্ত কিছু সমস্যায় আমরা কিভাবে দাঁতের পরিচর্যা করতে পারি।

ডাঃ মোঃ মাহফুজুর রহমান
বিডিএস (ডিউ), এমপিএইচ (বিএসএমএমইউ)
লেকচারার মার্কস মেডিক্যাল কলেজ , ডেন্টাল ইউনিট, ঢাকা
কনসালটেন্ট, এসএফ ডেন্টাল সার্জারি, মিরপুর-১২, ঢাকা
মোবাইলঃ ০১৭৩২৪২২৭১৯  

দাঁতের ফাকে খাবার জমা
প্রায় সব বয়সের মানুষই এই সমস্যায় ভোগেন। দুই দাঁতের মাঝের এই খাবার বের করার জন্য অনেকেই কাঠি, পিন, সুচালো কোনও বস্তু ব্যবহার করে থাকেন যা দাঁত ও মাড়ির স্বাস্থের জন্য ক্ষতির কারন হয়ে দাড়ায়। এসবের পরিবর্তে দাঁতের ফাকে জমে থাকা খাবার বের করার জন্য ডেন্টাল ফ্লস ব্যবহার করা উচিৎ। ফার্মেসি, সুপারশপ গুলোতে ডেন্টাল ফ্লস পাওয়া যায়।

দাঁতের ফাকে খাবার জমে মাড়ি ফুলে যাওয়া
দাঁতের ফাকে খাবার জমে থাকলে এবং তা সঠিক সময়ে পরিস্কার না করলে সেখানে জীবানু সংক্রমন হয়ে মাড়ি ফুলে উঠতে পারে এবং মাড়িতে প্রদাহ হতে পারে। এক গ্লাস কুসুম গরম পানিতে এক চা চামচ লবন মিশিয়ে কুলকুচি করলে এই সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পাওয়া যেতে পারে। বাজারে বিভিন্ন রকম মাউথওয়াশ পাওয়া যায়। ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে সেগুলি ব্যবহার করা যেতে পারে।

দাঁতের কোনও অংশ ভেঙে যাওয়া
খাবার খেতে গিয়ে দাঁতের কোনও অংশ ভেঙে গেলে দেরি না করে অতি সত্ত্বর দন্ত চিকিৎসকের শরণাপন্ন হয়ে তার পরামর্শ অনুযায়ী প্রয়োজনীয় চিকিৎসা নেয়া উচিৎ

দাঁতের যত্নে করণীয়
দাঁতের সুস্বাস্থ রক্ষায় প্রতিদিন দুই বেলা (সকালে নাস্তা খাবার পরে এবং রাতে ঘুমাতে যাবার আগে)দাঁত ব্রাশ করুন। প্রতিবার খাওয়ার পরে ভালোমতো কুলকুচি করুন। বছরে অন্তত দুইবার দন্ত চিকিৎসকের কাছে গিয়ে দাঁত চেকআপ করুন। দাঁত ও মুখ গহবরের যেকোন সমস্যায় অবহেলা না করে দ্রুত দন্ত চিকিৎসকের পরামর্শ গ্রহণ করুন কারন সময়ের এক ফোড় অসময়ের দোষ ফোড়।

নিয়মিত দাঁতের যত্ন নিন, সুস্থ থাকুন।
ইদ হোক আনন্দের, ইদ সবার জীবনে সুখ, শান্তি ও সমৃদ্ধি বয়ে আনুক।   

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close